জল রঙের ইতিহাস, জল রঙের ব্যবহার, জল রঙের ছবি আঁকা। History of water color.

জল রঙের ইতিহাস, জল রঙের ব্যবহার, জল রঙের ছবি আঁকা। History of water color.

জল রঙের ইতিহাস নিয়ে অনেক কথা, তা হয়তো বলে শেষ করা যায় না। আমি একজন গ্রামীণ শিল্পী হিসেবে জল রং নিয়ে যদি বলতে চাই, তাহলে প্রথমত গ্রাম বাংলার কথাই মনে পড়ে। গ্রাম বাংলার প্রাকৃতিক দৃশ্য সুন্দর মধুময় চারদিকে সবুজ বন গাছপালা নদী-নালা এসব কিছু আঁকার জন্য অয়েল কালার ঠিক জমে না। কিন্তু ওয়াটার কালার একদমই বেস্ট কালার, যা খুব সুন্দর ভাবে খুবই মনোরম ভাবে প্রাকৃতিক পরিবেশকে কাগজে ফুটিয়ে তোলে। জলরং গ্রাম বাংলার জন্য ও অপূর্ব প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আঁকার জন্য ব্যবহার চলে আসছে বহু কাল আগেথেকে। এমন নয় যে শুধু প্রাকৃতিক সৌন্দর্য জলরঙে আঁকা যায়, আরো অন্যান্য শহর ঘরবাড়ি গাড়ি ঘোড়া ট্রেন-বাস সবকিছু আঁকা যায়। কিন্তু গ্রামের প্রাকৃতিক দৃশ্য আঁকার মজাই আলাদা, তাই আপনারা যারা জল রং নিয়ে অভ্যাস করার কথা ভাবছেন, আপনার একদমই ঠিক সিদ্ধান্ত। আপনি জলরঙে অভ্যাস করুন, দেখবেন আপনার শিল্প মর্যাদা অনেক উপরে উঠে যাবে, আপনি খুব সহজেই চিত্র প্রেমীদের মন জয় করতে পারবেন। কারণ জলরঙের এক সুন্দর স্নিগ্ধতা আছে, যেটা আপনি এক্রেলিক কালার এ আনতে পারবেন না। এক্রেলিক কালার হল একপ্রকার রেডিমেড কালার যার দ্বারা আপনি ছবিতো খুব সুন্দর আঁকতে পারবেন, কিন্তু খুব সুন্দর স্নিগ্ধতা আসবে না, কিছুটা রুক্ষতা আসবে।

খুবই ছোট বেলায় জলরং এর সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল, ছবি আঁকার ক্লাসে। খুবই উৎসাহের সঙ্গে জল রং ব্যবহার করেছিলাম। তখনও খেয়াল করিনি যে জলরং দুই ধরনের পাওয়া যায়, একটি হচ্ছে টিউবের মধ্যে থাকে এবং এটি কাগজের বাক্সের মধ্যে ভরা থাকে, এবং অন্যটি হচ্ছে টিনের অথবা কাচের কৌটোর মধ্যে সাজানো থাকে। একটা হচ্ছে আর্টিস্ট ওয়াটার কালার এবং এই জাতীয় সিমিলার আরো অন্যান্য কালার। আরেকটা হচ্ছে পোস্টার কালার যেটা কিছুটা খসখসে টাইপের হয় এবং পোস্টার লেখার জন্য বা পোস্টার জাতীয় কিছু আঁকার জন্য ব্যবহার করা হয়। আর্টিস্ট ওয়াটার কালার সাধারণত নেচার পেইন্টিং করার জন্য খুব সুন্দর কালার যা দিয়ে আপনি কম্পিটিশন এবং অন্যান্য এক্সিবিশন এর জন্য পেইন্টিং করতে পারবেন। কিন্তু পোস্টার কালার দিয়ে আপনি তা পারবেন না, ওটাতে আপনাকে রেডিমেড ট্রেডিশনাল কিছুটা….. এমনই পেন্টিং করতে পারবেন যা দিয়ে আপনার কোন কন্টাক্ট থাকলে বা লেখালেখির কাজ করার জন্য ব্যবহার করতে পারবেন।

জল রঙের ইতিহাস- ওয়াটার কালার খুবই প্রাচীন কালার, তবে প্রাচীনকাল থেকে এর জনপ্রিয়তা ছিল না। নবজাগরণের সময় জল রং এর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায়, কিন্তু জলরং এর গুরুত্ব বিশেষ ছিল না। ম্যাপ প্রস্তুতকারী, মিলিটারি অফিসার ও ইঞ্জিনিয়ার এবং আমিনের কাছে তৎকালীন সময়ে জল রং ব্যবহার বৃদ্ধি পায়। ক্যামেরা ছিল না সেই জন্য জল রং এর দ্বারা তারা তাদের সমস্ত কাজগুলো খুব সহজে করতে পারত। তেল রং ব্যবহার করা মুশকিল হতো কারণ তেলরঙের জন্য আলাদা পরিবেশ দরকার হয়, যেখানে সেখানে এটা ব্যবহার করা যায় না, হাতে পায়ে লাগলে হট করে ছাড়তে চায় না। জল রং দিয়ে খুব সহজে যেখানে-সেখানে বনে জঙ্গলে ছবি আঁকা যেতে পারে। সেজন্য জলরং এর গুরুত্ব এমনিভাবে বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে থেকেই বৃদ্ধি পায়। ধীরে ধীরে জলরং নতুন প্রজন্মের ব্যবহারের ফলে এটি বিভিন্ন স্কুল কলেজ ও সমস্ত মাধ্যমে সমস্ত স্তরে ছড়িয়ে পড়ে, বর্তমানে জলরং এর চাহিদা খুব বেশি।

জল রং হল এক উন্নত স্বাধীন শিল্পমাধ্যম, জলরঙ কে উচ্চস্তরের নিয়ে যাওয়ার জন্য যে দুজন শিল্পীর নাম আগে আসে তাদের মধ্যে একজন হলেন পল স্যান্ডবি। তাকে ইংরেজ জলরঙের জনক নামে অভিহিত করা হয়েছিল। আরো অন্য আরেকজনের নাম আসে যার নাম যোশেফ টার্নার, তিনি জলরং এর আঁকা ছবি কে অন্য উচ্চতায় তুলে নিয়ে গেছেন, তাছাড়া প্রচুর পরিমাণে শিল্পকলা ঐতিহাসিক ও পৌরাণিক এবং ভৌগোলিক মাধ্যম হিসেবে জলরঙকে অন্যমাত্রা দান করেছে। সেই সমস্ত চিত্রকলার বর্তমানে বহুমূল্য ও ঐতিহাসিক দরজা প্রদান করে।

জল রঙের ইতিহাস, জল রঙের ব্যবহার, জল রঙের ছবি আঁকা। History of water color.
জল রঙের ইতিহাস, জল রঙের ব্যবহার, জল রঙের ছবি আঁকা। History of water color.

জলরঙের বিশেষ একটি পরীক্ষা হল ওয়াস এবং টেম্পারা। আমাদের দেশ ইংরেজদের ঔপনিবেশিক দেশের মধ্যে পড়ে, তাই ইংরেজদের প্রচলিত বেশকিছু তরিকা আমরা এবং আমাদের কালচারের সঙ্গে মিশে আছে। ইংরেজরা এমনই অনেক পদ্ধতি অবলম্বন করতো, ছবি আঁকার জন্য তারা জলরঙের ওপর বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকতো। ভারতবর্ষের চিত্রকলার সংস্কৃতিতে ইংরেজদের সেই চাপ পড়ে গেছে, যা মুছে যায়নি এখনো পর্যন্ত। ছবি আঁকার পর শুকিয়ে গেলে জলে ভেজানো তুলি দিয়ে ছবিকে মোছা হয়, তারপর তাতে আবার রং লাগানো হয়, এভাবে বারবার রং লাগানো এবং বারবার মোছার ফলে ধীরে ধীরে এক ধরনের নরম ও মসৃন টাইপের এক চিত্র ফুটে ওঠে। যেটা খুবই সুন্দর দেখতে হয়। এই ছবি আঁকার জন্য খুবই দক্ষতার প্রয়োজন হয়, এর পদ্ধতি ভারতের জলরঙের একটি অন্যতম পদ্ধতি।

জল রং ব্যবহার করতে যেমন সুন্দর লাগে, এতে যেমন আঁকা খুবই সুন্দর হয়, তেমনি এর কিছু গুণাগুণ রয়েছে। আপনাকে প্রথমে একটু করে জল রং হালকা করে পাতলা করে ব্যবহার করতে হবে। এবং step-by-step আপনাকে ধীরে ধীরে পেইন্টিং করতে হবে। ভুল হয়ে গেলে সংশোধন করা সম্ভব যদি আপনি সেটাকে মুছে ফেলতে পারবেন জল দিয়ে, পুরোপুরি মুছে ফেলতে পারবেন না। তারপরে আপনি নতুন করে রঙ লাগিয়ে আপনার কাজটি সুন্দর করে বানাতে পারেন। কিন্তু আপনি মনে রাখবেন যতই আপনি রং টা তোলার চেষ্টা করুন প্রথমবারের মতো কাগজের সেই দৃশ্য আর আসবেনা, কিছুটা হলেও রঙ থেকে যাবে। তাই আপনাকে সবসময় মনে রাখতে হবে এবং মনোযোগ সহকারে পেইন্টিং বানাতে হবে। জল রং ব্যবহার আপনি নির্ভয়ে করতে পারেন, এটিতে তেলরঙের মত কোন বিষাক্ত কিছু নেই। এটা হাতে পায়ে লাগলে খুব সহজে উঠে যায় জলরং পুরোপুরি নিরাপদ।

বর্তমান সময়ে জলরঙের বহু ব্যবহারের ফলে এর মধ্যে বহু উন্নতি করা হয়েছে, কেমিক্যাল কে অনেক বেশি আগের চেয়ে উন্নতি করা হয়েছে। গুঁড়ো রং এর বদলে বর্তমানে টিউব রং ব্যবহার করা হয়। পুরোপুরি রেডিমেড রং আপনি বাজারে পেয়ে যাবেন, খুব সহজে আপনি ছবি আঁকতে পারবেন। তাই জল রং ব্যবহার করে আপনি ও আপনার শিল্পকলাকে ফুটিয়ে তুলুন এবং আপনার শিল্প প্রেমীদের মন জয় করুন।

সকালের সেরা নাস্তা, সকালের নাস্তায় কিছু স্বাস্থ্যকর খাবার, The best breakfast in the morning

সকালের সেরা নাস্তা, সকালের নাস্তায় কিছু স্বাস্থ্যকর খাবার, The best breakfast in the morning

সকাল বেলা যে কোনো রিলেটিভ এর বাড়ি গেলে একটাই কথা শোনাযাবে – খোকা নাস্তা করেছিস? কারণ সকালের নাস্তা আমাদের শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ কাবার। এটি সারা দিন আমাদেরকে প্রাণবন্ত ও সুস্থ সতেজ রাখতে এবং ভালোথাকতে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিন সকালে স্বাস্থ্যকর এবং ভালো উপাদেয় নাস্তা খেলে মস্তিষ্ক ও বডি পুরোদিনের জন্য তৈরি হয়ে যায় এবং সারাদিন চলাফেরার শক্তি পাওয়া যায়। কিন্তু সব খাবারই স্বাস্থ্যকর ও আমাদের শরীরের জন্য উপযুক্ত নয়। তাই আমাদের জানতে হবে সকালের নাস্তায় কোন খাবারগুলো খাওয়া উচিত ও খেলে উপকার হবে।

Asgar Molla

Hi i am Asgar, I am a Graphic Designer & Fine Artist. The "Best Messages" is my blogging website. I am working on Varity of wishes, as like Happy Birthday, Happy Anniversary, Good Morning and Night post etc. You can read and share our messages and videos with your dear one. Thank you!

Leave a Reply

%d bloggers like this: